۞ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ ۞
অনুবাদকে টিক দিন        


সমগ্র কুরআনে সার্চ করার জন্য আরবি অথবা বাংলা শব্দ দিন...


তথ্য খুজুন: যেমন মায়িদা x
সুরা লিস্ট দেখুন

সূরা নাম (Sura Name): �������� ������������ -- Al-A'la -- ������-���'������
Arabic Font Size:
আয়ত নাম্বার বায়ান ফাউন্ডেশন মুজিবুর রহমান তাইসীরুল কুরআন আরবি
1 তুমি তোমার সুমহান রবের নামের তাসবীহ পাঠ কর, তুমি তোমার সুমহান রবের নামের পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর। তোমার মহান প্রতিপালকের নামের পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর। سَبِّحِ اسْمَ رَبِّكَ الْاَعْلَیۙ﴿١ ﴾
2 যিনি সৃষ্টি করেন। অতঃপর সুসম করেন। যিনি সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর যথাযথভাবে সমন্বিত করেছেন, যিনি সৃষ্টি করেছেন অতঃপর করেছেন (দেহের প্রতিটি অঙ্গকে) সামঞ্জস্যপূর্ণ। الَّذِیْ خَلَقَ فَسَوّٰی۪ۙ﴿٢ ﴾
3 আর যিনি নিরূপণ করেন অতঃপর পথ নির্দেশ দেন। এবং যিনি নিয়ন্ত্রণ করেছেন, তারপর পথ দেখিয়েছেন, যিনি সকল বস্তুকে পরিমাণ মত সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর (জীবনে চলার) পথনির্দেশ করেছেন। وَ الَّذِیْ قَدَّرَ فَهَدٰی۪ۙ﴿٣ ﴾
4 আর যিনি তৃণ-লতা বের করেন। এবং যিনি তৃণাদী উৎপন্ন করেছেন, যিনি তৃণ ইত্যাদি বের করেছেন। وَ الَّذِیْۤ اَخْرَجَ الْمَرْعٰی۪ۙ﴿٤ ﴾
5 তারপর তা কালো খড়-কুটায় পরিণত করেন। পরে ওকে বিশুস্ক বিমলিন করেছেন, অতঃপর তাকে কাল আবর্জনায় পরিণত করেছেন। فَجَعَلَهٗ غُثَآءً اَحْوٰیؕ﴿٥ ﴾
6 আমি তোমাকে পড়িয়ে দেব অতঃপর তুমি ভুলবে না। অচিরেই আমি তোমাকে পাঠ করাব, ফলে তুমি বিস্মৃত হবেনা – আমি তোমাকে পড়িয়ে দেব, যার ফলে তুমি ভুলে যাবে না। سَنُقْرِئُكَ فَلَا تَنْسٰۤیۙ﴿٦ ﴾
7 আল্লাহ যা চান তা ছাড়া। নিশ্চয় তিনি জানেন, যা প্রকাশ্য এবং যা গোপন থাকে। আল্লাহ যা ইচ্ছা করবেন তদ্ব্যতীত, নিশ্চয়ই তিনি প্রকাশ্য ও গুপ্ত বিষয় জ্ঞাত আছেন, তবে ওটা বাদে যেটা আল্লাহ (রহিত করার) ইচ্ছে করবেন। তিনি জানেন যা প্রকাশ্য আর যা গোপন। اِلَّا مَا شَآءَ اللّٰهُ ؕ اِنَّهٗ یَعْلَمُ الْجَهْرَ وَ مَا یَخْفٰیؕ﴿٧ ﴾
8 আর আমি তোমাকে সহজ বিষয় সহজ করে দেব। আমি তোমার জন্য কল্যাণের পথকে সহজ করে দিব। আমি তোমার জন্য সহজপথ (অনুসরণ করা) আরো সহজ করে দেব। وَ نُیَسِّرُكَ لِلْیُسْرٰیۚۖ﴿٨ ﴾
9 অতঃপর উপদেশ দাও যদি উপদেশ ফলপ্রসু হয়। অতএব উপদেশ যদি ফলপ্রসু হয় তাহলে উপদেশ প্রদান কর। কাজেই তুমি উপদেশ দাও যদি উপদেশ উপকার দেয়। فَذَكِّرْ اِنْ نَّفَعَتِ الذِّكْرٰیؕ﴿٩ ﴾
10 সে-ই উপদেশ গ্রহণ করে, যে ভয় করে । যারা ভয় করে তারা উপদেশ গ্রহণ করবে। যে ভয় করে সে উপদেশ গ্রহণ করবে। سَیَذَّكَّرُ مَنْ یَّخْشٰیۙ﴿١٠ ﴾
11 আর হতভাগাই তা এড়িয়ে যায়। আর ওটা উপেক্ষা করবে সে, যে নিতান্ত হতভাগা। আর তা উপেক্ষা করবে যে চরম হতভাগা। وَ یَتَجَنَّبُهَا الْاَشْقَیۙ﴿١١ ﴾
12 যে ভয়াবহ আগুনে প্রবেশ করবে। সে ভয়াবহ অগ্নিকুন্ডে প্রবেশ করবে। যে ভয়াবহ আগুনে প্রবেশ করবে। الَّذِیْ یَصْلَی النَّارَ الْكُبْرٰیۚ﴿١٢ ﴾
13 তারপর সে সেখানে মরবেও না এবং বাঁচবেও না। অতঃপর সে সেখানে মরবেও না, বাঁচবেও না। অতঃপর সেখানে সে না (মরার মত) মরবে, আর না (বাঁচার মত) বাঁচবে। ثُمَّ لَا یَمُوْتُ فِیْهَا وَ لَا یَحْیٰیؕ﴿١٣ ﴾
14 অবশ্যই সাফল্য লাভ করবে যে আত্মশুদ্ধি করবে, নিশ্চয়ই সে সাফল্য লাভ করবে যে পবিত্রতা অর্জন করে। সাফল্য লাভ করবে সে যে নিজেকে পরিশুদ্ধ করে, قَدْ اَفْلَحَ مَنْ تَزَكّٰیۙ﴿١٤ ﴾
15 আর তার রবের নাম স্মরণ করবে, অতঃপর সালাত আদায় করবে। এবং স্বীয় রবের নাম স্মরণ করে ও সালাত আদায় করে। আর তার প্রতিপালকের নাম স্মরণ করে ও নামায কায়েম করে। وَ ذَكَرَ اسْمَ رَبِّهٖ فَصَلّٰیؕ﴿١٥ ﴾
16 বরং তোমরা দুনিয়ার জীবনকে প্রাধান্য দিচ্ছ। কিন্তু তোমরা পার্থিব জীবনকে পছন্দ করে থাক, কিন্তু তোমরা তো দুনিয়ার জীবনকেই প্রাধান্য দাও, بَلْ تُؤْثِرُوْنَ الْحَیٰوةَ الدُّنْیَاؗۖ﴿١٦ ﴾
17 অথচ আখিরাত সর্বোত্তম ও স্থায়ী। অথচ আখিরাতের জীবনই উত্তম ও অবিনশ্বর। অথচ আখিরাতই অধিক উৎকৃষ্ট ও স্থায়ী। وَ الْاٰخِرَةُ خَیْرٌ وَّ اَبْقٰیؕ﴿١٧ ﴾
18 নিশ্চয় এটা আছে পূর্ববর্তী সহীফাসমূহে। নিশ্চয়ই এটা পূর্ববর্তী গ্রন্থসমূহে (বিদ্যমান) আছে। আগের কিতাবগুলোতে এ কথা (লিপিবদ্ধ) আছে, اِنَّ هٰذَا لَفِی الصُّحُفِ الْاُوْلٰیۙ﴿١٨ ﴾
19 ইবরাহীম ও মূসার সহীফাসমূহে। (বিশেষতঃ) ইবরাহীম ও মূসার গ্রন্থসমূহে। ইবরাহীম ও মূসার কিতাবে। صُحُفِ اِبْرٰهِیْمَ وَ مُوْسٰی﴿١٩ ﴾