۞ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ ۞
অনুবাদকে টিক দিন        


সমগ্র কুরআনে সার্চ করার জন্য আরবি অথবা বাংলা শব্দ দিন...


তথ্য খুঁজুন: যেমনঃ মায়িদা x
সুরা লিস্ট দেখুন

সূরা নাম (Sura Name): �������� ������ -- Abasa -- ���������������
আয়াত সংখ্যা: 42
আয়াত নাম্বার আয়াত আরবি
1 (নবী) মুখ ভার করল আর মুখ ঘুরিয়ে নিল।
[ ���������������: 1 ]
عَبَسَ وَ تَوَلّٰۤیۙ﴿١ ﴾
2 (কারণ সে যখন কুরায়শ সরদারদের সাথে আলোচনায় রত ছিল তখন) তার কাছে এক অন্ধ ব্যক্তি আসল।
[ ���������������: 2 ]
اَنْ جَآءَهُ الْاَعْمٰىؕ﴿٢ ﴾
3 (হে নবী!) তুমি কি জান, সে হয়ত পরিশুদ্ধ হত।
[ ���������������: 3 ]
وَ مَا یُدْرِیْكَ لَعَلَّهٗ یَزَّكّٰۤیۙ﴿٣ ﴾
4 কিংবা উপদেশ গ্রহণ করত, ফলে উপদেশ তার উপকারে লাগত।
[ ���������������: 4 ]
اَوْ یَذَّكَّرُ فَتَنْفَعَهُ الذِّكْرٰىؕ﴿٤ ﴾
5 পক্ষান্তরে যে পরোয়া করে না,
[ ���������������: 5 ]
اَمَّا مَنِ اسْتَغْنٰىۙ﴿٥ ﴾
6 তার প্রতি তুমি মনোযোগ দিচ্ছ।
[ ���������������: 6 ]
فَاَنْتَ لَهٗ تَصَدّٰىؕ﴿٦ ﴾
7 সে পরিশুদ্ধ না হলে তোমার উপর কোন দোষ নেই।
[ ���������������: 7 ]
وَ مَا عَلَیْكَ اَلَّا یَزَّكّٰىؕ﴿٧ ﴾
8 পক্ষান্তরে যে লোক তোমার কাছে ছুটে আসল।
[ ���������������: 8 ]
وَ اَمَّا مَنْ جَآءَكَ یَسْعٰىۙ﴿٨ ﴾
9 আর সে ভয়ও করে,
[ ���������������: 9 ]
وَ هُوَ یَخْشٰىۙ﴿٩ ﴾
10 তুমি তার প্রতি অমনোযোগী হলে।
[ ���������������: 10 ]
فَاَنْتَ عَنْهُ تَلَهّٰىۚ﴿١٠ ﴾
11 না, এটা মোটেই ঠিক নয়, এটা তো উপদেশ বাণী,
[ ���������������: 11 ]
كَلَّاۤ اِنَّهَا تَذْكِرَةٌۚ﴿١١ ﴾
12 কাজেই যার ইচ্ছে তা স্মরণে রাখবে,
[ ���������������: 12 ]
فَمَنْ شَآءَ ذَكَرَهٗۘ﴿١٢ ﴾
13 (এটা লিপিবদ্ধ আছে) মর্যাদাসম্পন্ন কিতাবসমূহে
[ ���������������: 13 ]
فِیْ صُحُفٍ مُّكَرَّمَةٍۙ﴿١٣ ﴾
14 সমুন্নত, পবিত্র।
[ ���������������: 14 ]
مَّرْفُوْعَةٍ مُّطَهَّرَةٍۭۙ﴿١٤ ﴾
15 (এমন) লেখকদের হাতে
[ ���������������: 15 ]
بِاَیْدِیْ سَفَرَةٍۙ﴿١٥ ﴾
16 (যারা) মহা সম্মানিত পূত-পবিত্র।
[ ���������������: 16 ]
كِرَامٍۭ بَرَرَةٍؕ﴿١٦ ﴾
17 মানুষ ধ্বংস হোক! কোন্ জিনিস তাকে সত্য প্রত্যাখ্যানে উদ্বুদ্ধ করল?
[ ���������������: 17 ]
قُتِلَ الْاِنْسَانُ مَاۤ اَكْفَرَهٗؕ﴿١٧ ﴾
18 আল্লাহ তাকে কোন বস্তু হতে সৃষ্টি করেছেন?
[ ���������������: 18 ]
مِنْ اَیِّ شَیْءٍ خَلَقَهٗؕ﴿١٨ ﴾
19 শুক্রবিন্দু হতে। তিনি তাকে সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর তাকে পরিমিতভাবে গড়ে তুলেছেন।
[ ���������������: 19 ]
مِنْ نُّطْفَةٍ ؕ خَلَقَهٗ فَقَدَّرَهٗۙ﴿١٩ ﴾
20 অতঃপর তিনি (উপায়-উপকরণ ও প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী দিয়ে জীবনে চলার জন্য) তার পথ সহজ করে দিয়েছেন।
[ ���������������: 20 ]
ثُمَّ السَّبِیْلَ یَسَّرَهٗۙ﴿٢٠ ﴾
21 অতঃপর তার মৃত্যু ঘটান এবং তাকে কবরস্থ করেন।
[ ���������������: 21 ]
ثُمَّ اَمَاتَهٗ فَاَقْبَرَهٗۙ﴿٢١ ﴾
22 অতঃপর যখন তিনি চাইবেন তাকে আবার জীবিত করবেন।
[ ���������������: 22 ]
ثُمَّ اِذَا شَآءَ اَنْشَرَهٗؕ﴿٢٢ ﴾
23 না, মোটেই না, আল্লাহ তাকে যে নির্দেশ দিয়ে ছিলেন তা সে এখনও পূর্ণ করেনি।
[ ���������������: 23 ]
كَلَّا لَمَّا یَقْضِ مَاۤ اَمَرَهٗؕ﴿٢٣ ﴾
24 মানুষ তার খাদ্যের ব্যপারটাই ভেবে দেখুক না কেন।
[ ���������������: 24 ]
فَلْیَنْظُرِ الْاِنْسَانُ اِلٰى طَعَامِهٖۤۙ﴿٢٤ ﴾
25 আমি প্রচুর পানি ঢালি,
[ ���������������: 25 ]
اَنَّا صَبَبْنَا الْمَآءَ صَبًّاۙ﴿٢٥ ﴾
26 তারপর যমীনকে বিদীর্ণ করে দেই,
[ ���������������: 26 ]
ثُمَّ شَقَقْنَا الْاَرْضَ شَقًّاۙ﴿٢٦ ﴾
27 অতঃপর তাতে আমি উৎপন্ন করি-শস্য,
[ ���������������: 27 ]
فَاَنْۢبَتْنَا فِیْهَا حَبًّاۙ﴿٢٧ ﴾
28 আঙ্গুর, তাজা শাক-শব্জী,
[ ���������������: 28 ]
وَّ عِنَبًا وَّ قَضْبًاۙ﴿٢٨ ﴾
29 যয়তূন, খেজুর,
[ ���������������: 29 ]
وَّ زَیْتُوْنًا وَّ نَخْلًاۙ﴿٢٩ ﴾
30 আর ঘন বৃক্ষ পরিপূর্ণ বাগবাগিচা,
[ ���������������: 30 ]
وَّ حَدَآىِٕقَ غُلْبًاۙ﴿٣٠ ﴾
31 আর নানান জাতের ফল আর ঘাস-লতাপাতা।
[ ���������������: 31 ]
وَّ فَاكِهَةً وَّ اَبًّاۙ﴿٣١ ﴾
32 তোমাদের আর তোমাদের গৃহপালিত পশুগুলোর ভোগের জন্য।
[ ���������������: 32 ]
مَّتَاعًا لَّكُمْ وَ لِاَنْعَامِكُمْؕ﴿٣٢ ﴾
33 অবশেষে যখন কান-ফাটানো শব্দ আসবে;
[ ���������������: 33 ]
فَاِذَا جَآءَتِ الصَّآخَّةُؗ﴿٣٣ ﴾
34 সেদিন মানুষ পালিয়ে যাবে তার ভাই থেকে,
[ ���������������: 34 ]
یَوْمَ یَفِرُّ الْمَرْءُ مِنْ اَخِیْهِۙ﴿٣٤ ﴾
35 তার মা, তার বাপ,
[ ���������������: 35 ]
وَ اُمِّهٖ وَ اَبِیْهِۙ﴿٣٥ ﴾
36 তার স্ত্রী ও তার সন্তান থেকে,
[ ���������������: 36 ]
وَ صَاحِبَتِهٖ وَ بَنِیْهِؕ﴿٣٦ ﴾
37 সেদিন তাদের প্রত্যেকেই নিজেকে নিয়ে ব্যতিব্যস্ত থাকবে।
[ ���������������: 37 ]
لِكُلِّ امْرِئٍ مِّنْهُمْ یَوْمَىِٕذٍ شَاْنٌ یُّغْنِیْهِؕ﴿٣٧ ﴾
38 সেদিন কতক মুখ উজ্জ্বল হবে,
[ ���������������: 38 ]
وُجُوْهٌ یَّوْمَىِٕذٍ مُّسْفِرَةٌۙ﴿٣٨ ﴾
39 সহাস্য, উৎফুল্ল।
[ ���������������: 39 ]
ضَاحِكَةٌ مُّسْتَبْشِرَةٌۚ﴿٣٩ ﴾
40 সেদিন কতক মুখ হবে ধূলিমলিন।
[ ���������������: 40 ]
وَ وُجُوْهٌ یَّوْمَىِٕذٍ عَلَیْهَا غَبَرَةٌۙ﴿٤٠ ﴾
41 কালিমা ওগুলোকে আচ্ছন্ন করবে।
[ ���������������: 41 ]
تَرْهَقُهَا قَتَرَةٌؕ﴿٤١ ﴾
42 তারাই আল্লাহকে প্রত্যাখ্যানকারী, পাপাচারী।
[ ���������������: 42 ]
اُولٰٓىِٕكَ هُمُ الْكَفَرَةُ الْفَجَرَةُ﴿٤٢ ﴾